E Porcha gov bd কিভাবে খতিয়ান পর্চা অনুসন্ধান করবেন জেনে নিন | E porcha ki

E Porcha gov bd

E Porcha gov bd খতিয়ান আবেদন: জমি সংক্রান্ত যে কোনো নথি সংগ্রহ করা সময়সাপেক্ষ এবং অনেক ঝামেলার। কিন্তু এখন ই-পোর্চা সহ জমি সংক্রান্ত প্রায় সবকিছুই অনলাইনেই পাওয়া যাচ্ছে। তাই আজ আমরা আপনাকে অনলাইন ভূমি সেবা E Porcha খতিয়ান অনুসন্ধান সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য প্রদান করতে যাচ্ছি। আমি আশা করি আপনি যদি এই বিষয়গুলি জানেন তবে এটি ভূমি সংক্রান্ত বিষয়ে বা ই-লাইনে E Porcha খতিয়ান অনুসন্ধানের মাধ্যমে ভূমি পরিষেবা পেতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

E porcha ki?

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয় ই-নামজারি, ভূমি উন্নয়ন কর, নামজারী খতিয়ান, ডিজিটাল ল্যান্ড রেকর্ড, আরএস খতিয়ান, রেন্ট সার্টিফিকেট কেস, বাজেট ব্যবস্থাপনা, অভিযোগ নিষ্পত্তি ব্যবস্থাপনা, উত্তরাধিকার অ্যাপ, ই-বুক অ্যাপ জমিকে আরও অগ্রসর করতে, সেবা বা খতিয়ান তদন্তে বিভিন্ন যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়েছে।

ই-পর্চা বলতে কি বোঝায় পর্চার প্রয়োজনীয়তা

পর্চা বা খতিয়ান হল জমির মালিকের মালিকানা প্রমাণের একটি মাধ্যম। জমি ক্রয়ের পর রেজিস্ট্রি প্রক্রিয়া শেষে জমির মালিকের নামে যে খতিয়ানের কপি রেজিস্ট্রি করা হয় তাকে খতিয়ানের কপি বলে।

e porcha. gov. bd

eporcha.gov.bd হল ই-পোর্চা সম্পর্কিত একটি সরকারি ওয়েব পোর্টাল। এই ওয়েবসাইট ভিজিট করলে আপনি সহজেই খতিয়ান ও দাগ সহ জমির মালিকানা সম্পর্কে জানতে পারবেন। আপনি বিশ্বের যে কোন জায়গা থেকে www.eporcha.gov.bd ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারেন। কোন সমস্যা ছাড়াই www.eporcha.gov.bd ওয়েবসাইট ভিজিট করুন এবং ঘরে বসে জমি সংক্রান্ত বিষয় জেনে নিন।

E Porcha gov bd কিভাবে অনুসন্ধান করতে হয় তা জানুন

E Porcha খতিয়ান অনুসন্ধান করতে বা Porcha অনলাইন দেখতে আপনাকে নীচের পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করতে হবে। আপনি E Porcha বা খতিয়ান অনুসন্ধান করে আপনার জমির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিজেই পরীক্ষা করতে পারেন। খতিয়ান অনুসন্ধানের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই আপনার জমির কাগজপত্র নিজেই দেখতে পারবেন। আপনি আপনার স্মার্টফোনের মাধ্যমে আপনার খতিয়ানের এই অনলাইন E Porcha এর কপি পেতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ  ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ পদ্ধতি | খাজনা রশিদ বের করার নিয়ম

E porcha Khatian

প্রতিটি খতিয়ান আলাদাভাবে নির্বাচন করার জন্য প্রতিটি খতিয়ানের বিপরীতে একটি অনন্য নম্বর দেওয়া হয়। ফলে খতিয়ান নম্বর ব্যবহার করে খুব সহজেই খতিয়ান পাওয়া সম্ভব। আমরা জানি যে সাধারণত একটি মৌজায় একই মালিকের মালিকানাধীন সমস্ত জমির প্লট একত্রিত করে খতিয়ানে লিপিবদ্ধ করা হয়।

খতিয়ান কত প্রকার?

বাংলাদেশে মূলত ৪ ধরনের খতিয়ান রয়েছে। নিচে আপনাদের সুবিধার্থে এই ৪ প্রকারের নাম উল্লেখ করলাম।

  • সিএস খতিয়ান – (Cadastral Survey)
  • এসএ খতিয়ান – (State Acquisition Survey)
  • আরএস খতিয়ান – (Revisional Survey)
  • বিএস খতিয়ান/সিটি জরিপ – (City Survey)

খতিয়ান ও দাগের তথ্য অনুসন্ধান

  • খতিয়ান অনুসন্ধান করতে প্রথমে আপনাকে আপনার মোবাইলে বা কম্পিউটারে একটি ব্রাউজার খুলতে হবে।
  • অনলাইনে ফর্ম দেখতে www.land.gov.bd এখানে ক্লিক করুন তারপর সিটিজেন কর্নারে ক্লিক করুন এবং খতিয়ান অনুসন্ধান করুন।
  • খতিয়ান অনুসন্ধানের পাশের মানচিত্র থেকে আপনার জেলা নির্বাচন করুন আপনার নিজের জেলায় ক্লিক করুন।
  • খতিয়ান অনুসন্ধানের জন্য আপনি কোন খতিয়ান অনুসন্ধান করছেন, আরএস কাগজ, এসএ, বিএস কাগজ আপনি যা অনুসন্ধান করতে চান তা নির্বাচন করুন।
  • এখন উপজেলা ও মৌজার নাম বা মৌজা জেএল নম্বর নির্বাচন করুন এবং এখানে খতিয়ান নম্বর বা দাগ নম্বর লিখুন।
  • খতিয়ান চিহ্ন বা খতিয়ান নম্বর জানা না থাকলে উক্ত খতিয়ানের মালিকের নাম বা মালিকের পিতার নাম লিখুন।

ই খতিয়ান যাচাই

অনলাইনে কি E porcha খতিয়ান ভেরিফিকেশন বা ল্যান্ড রেকর্ড ভেরিফিকেশন করতে চান। E porcha খতিয়ান ভূমি মন্ত্রণালয়ের একটি ডিজিটাল সেবার নাম। যার মাধ্যমে ঘরে বসে ই-পেপার খতিয়ান সংগ্রহ করতে পারবেন। উল্লিখিত ৪ (চার) প্রকার খতিয়ান অনলাইন থেকে সংগ্রহ করা যাবে।

পর্চা অনুসন্ধান

  1. প্রথমে ভিজিট করুন https://eporcha.gov.bd/khatian-search-panel
  2. বিভাগ নির্বাচনঃ এখানে বিভাগ নির্বাচন করতে হবে।
  3. জেলা নির্বাচনঃ এখানে আপনার জেলা নির্বাচন করুন।
  4. খাতিয়ান টাইপ নির্বাচনঃ কোন ধরনের খতিয়ান বের করতে চান তা এখান থেকে নির্বাচন করুন।
  5. উপজেলা নির্বাচন করুনঃ কোন উপজেলার অন্তর্ভুক্ত তা এখানে নির্বাচন করুন।
  6. মৌজা নির্বাচন করুনঃ আপনার মৌজার নাম দিন এখানে।
  7. খতিয়ান নংঃ আপনি যে জমির খতিয়ানটি বের করতে তার নম্বরটি এখানে দিন।
  8. দাগ নাম্বারঃ যদি দাগ জানা থাকে এখানে দিন।
  9. মালিকানা নামঃ জমির মালিকের নাম জানা থাকলে এখানে দিন।
  10. পিতা/স্বামীর নামঃ পিতা/স্বামীর নাম জানা থাকলে তা এখানে নির্বাচন করুন।
  11. ক্যাপচা কোড লিখুনঃ এখানে উল্লিখিত ক্যাপসা কোডটি হুবহু ফাঁকা জায়গাতে টাইপ করুন।
  12. সর্বশেষে, উপরে প্রদানকৃত সকল তথ্য সঠিক থাকলে, অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করুন।
আরও পড়ুনঃ  Framing the Profile Picture Girl: A Study of Gender, Identity, and Digital Culture
Paper search
যেভাবে E porcha সার্চ করবেন।

খতিয়ানের মালিক বা পিতার নামের সঠিক বানান লিখতে ভুল করবেন না। সবশেষে খতিয়ান অনুসন্ধানে নিচে দেওয়া ক্যাপচা কোডটি দিবেন এবং অনুসন্ধান করুন। পরবর্তী ধাপে, আপনার NID কার্ডে জন্ম তারিখ সহ যাচাইকরণে ক্লিক করুন, তারপরে কার্ডের সাথে নিবন্ধিত মোবাইল নম্বরটি দিন। এখন খতিয়ান অনুসন্ধানে নিম্নলিখিত যোগফলটি লিখবেন।

ই-পর্চার সুবিধা

EPorcha এর ওয়েবসাইটে গিয়ে জমির মালিকানা জানতে পারবেন। এজন্য জমির খতিয়ান নম্বর বা দাগ নম্বর থাকতে হবে। তাছাড়া শুধু জমির মালিকের নাম বা পিতার নাম জানলেও সেই মালিকের যাবতীয় নথিপত্র জানতে পারবেন।

Online E porcha

EPorcha ওয়েবসাইট দেখার পর, নাগরিকরা প্যানেল থেকে লগইন বিকল্প ব্যবহার করে লগ ইন করে আবেদনের বিবরণ যাচাই করতে পারেন। আপনি যদি আগে অনলাইন ই-ক্রয়ের জন্য আবেদন না করে থাকেন তবে দয়া করে নাগরিক কর্নার থেকে আবেদন করুন।

জমির মালিক কি ভাবে বের করবো?

আপনি যদি জমির মালিক কে তা জানতে চান তবে আপনি সহজেই ই-পোর্চা ওয়েবসাইট বা খতিয়ান অনুসন্ধান করে জমির মালিক খুঁজে পেতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে কিছু বিষয় জানতে হবে।

উদাহরণস্বরূপ, খতিয়ান অনুসন্ধানে আপনাকে উপজেলা জেলা ও মৌজার নাম লিখতে হবে। এরপর রেকর্ডের মালিকের সঠিক নাম বা রেকর্ডের মালিকের বাবার সঠিক নাম, এগুলো দিয়ে সার্চ করলে ওই নামে কয়টি সার্টিফিকেট আছে তা পাবেন। আবার জমির চিহ্ন বা খতিয়ান লিখে সার্চ করলে শুধু ওই খতিয়ানের মালিকের নাম বা দাগ দেখা যাবে।

এখন আপনি ঘরে বসে জমির পার্সেলের প্রত্যয়িত অনুলিপি বা জমির যে কোনও প্রত্যয়িত অনুলিপি পেতে পারেন। এখন আপনি বাড়ি থেকে সরাসরি জমির পার্সেলের প্রত্যয়িত কপি বা জমির যে কোনও প্রত্যয়িত অনুলিপি পেতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ  বাংলাদেশের সরকারি ছুটির তালিকা ২০২৪ (সরকারি ছুটির ক্যালেন্ডার ২০২৪)

আপনার কাজের চাপ বা অফিসের কাজের চাপের কারণে আপনি ভূমি পরিষেবার জন্য ভূমি অফিসে যেতে পারবেন না। কোন সমস্যা নেই আপনি খতিয়ান সার্চ ই-পোর্চা ওয়েব সাইটে আবেদন করে ঘরে বসেই আপনার সার্টিফাইড কপি পেতে পারেন। ডাকযোগে খতিয়ানের সার্টিফাইড কপি পেতে চাইলে শুধুমাত্র লিখে আবেদন করুন। জরুরি অর্থ পেতে, আবেদন করার সময় জরুরি বিকল্পে টিক দিন।

জমির পর্চা ডাউনলোড

অনলাইনে জমির খতিয়ান অনুসন্ধান করে, আপনি চাইলে ই-পর্চা ডাউনলোড করে অনলাইন কপি সংগ্রহ করতে পারবেন। তবে এটি সার্টিফাইড কপি হিসেবে গ্রহণযোগ্য হবে না। বরং সার্টিফাইড কপি ডাউনলোড করার জন্য খতিয়ান তালিকার নিচে ‘খতিয়ান আবেদন’ লেখাটিতে ক্লিক করে খতিয়ানের সার্টিফাইড কপির জন্য আবেদন করতে হবে। একটি ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য দিয়ে, মোবাইল ভেরিফিকেশন করে ও সার্টিফাইড কপির জন্য নির্ধারিত ফি পরিশোধ করে খতিয়ানের সার্টিফাইড কপি সংগ্রহ করতে পারবেন।

ভূমি সেবার হটলাইন নাম্বার

গ্রামের দিওয়ানি বা মাতবর বা সুপরিচিত সার্ভেয়ার বা মুহরীর কাছ থেকে সঠিক পরামর্শ না পেলে হতাশ হওয়ার কোনো কারণ নেই। আপনি ভূমি হটলাইন পরিষেবা নিতে পারেন। বাংলাদেশ এখন ডিজিটালাইজড হয়েছে। ফলে সবকিছুই এখন হাতের মুঠোয়। এ ধারাবাহিকতায় ভূমি মন্ত্রণালয়ও ব্যতিক্রম নয়। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয় জনসাধারণের হয়রানির কথা মাথায় রেখে এখন ভূমি সংক্রান্ত সমস্যাগুলির জন্য একটি হটলাইন নম্বর চালু করেছে। 16122 নম্বরে কল করে আপনি সহজেই জমি সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য পেতে পারেন।

এই Video তে বিস্তারিত দেখুন

E Porcha Tutorial

FAQs

  1. E porcha ki?

    পর্চা বা খতিয়ান হল জমির মালিকের মালিকানা প্রমাণের একটি মাধ্যম। জমি ক্রয়ের পর রেজিস্ট্রি প্রক্রিয়া শেষে জমির মালিকের নামে যে খতিয়ানের কপি রেজিস্ট্রি করা হয় তাকে খতিয়ানের কপি বলে।

  2. খতিয়ান কত প্রকার ও কী কী?

    বাংলাদেশে মূলত ৪ ধরনের খতিয়ান রয়েছে। নিচে আপনাদের সুবিধার্থে এই ৪ প্রকারের নাম উল্লেখ করলাম।

    সিএস খতিয়ান – (Cadastral Survey)
    এসএ খতিয়ান – (State Acquisition Survey)
    আরএস খতিয়ান – (Revisional Survey)
    বিএস খতিয়ান/সিটি জরিপ – (City Survey)

About the Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like these

Share via
Copy link