Maldives President Mohamed Muizzu: মালদ্বীপে মইজ্জু সরকারের বিদায় ঘণ্টা! জানুন বিস্তারিত

Maldives President Mohamed Muizzu

মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুইজ্জু (Mohamed Muizzu) দেশে-বিদেশের তীব্র চাপের মধ্যে রয়েছেন। তিনি মালদ্বীপের দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই ভারতের সঙ্গে সম্পর্কের তিক্ততা শুরু হয়। মালদ্বীপ থেকে ভারতীয় সৈন্য প্রত্যাহারের জন্য তার আদেশকে এটি শুরু হয়।

পরবর্তীতে, পর্যটন-গন্তব্য লাক্ষাদ্বীপ-মালদ্বীপ বিতর্কে, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং তার বেশ কয়েকজন নেতা ও মন্ত্রীর বিরুদ্ধে ‘অপমানজনক’ মন্তব্য করার জন্য অভিযুক্ত হন।

ইতিমধ্যেই ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছিল যে মালদ্বীপের প্রধান বিরোধী দল ‘চীনাপন্থী‘ হিসাবে পরিচিত মুইজ্জুর এই ভারত-বিরোধী অবস্থান নিচ্ছে না। মালদ্বীপে পার্লামেন্টে ক্ষমতাসীন ও বিরোধী সাংসদের মধ্যে টানাপোড়েনও দেখা গেছে। মুইজ্জু সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে বড় পদক্ষেপ নিয়েছে দেশের প্রধান বিরোধী দল ‘মালদ্বীপিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টি (MDP)’।

আরও পড়ুনঃ  Cloud Theft: ব্যতিক্রমী এক চুরির অভিযোগ, কি সেই ঘটনা জানুন

Farewell to Maldives President Mohamed Muizzu?

মালদ্বীপের প্রধান বিরোধী দল চীনপন্থী হিসেবে পরিচিত মুইজ্জুর এই ভারত-বিরোধী অবস্থান মেনে নিচ্ছে না। মালদ্বীপে পার্লামেন্টে ক্ষমতাসীন ও বিরোধী সাংসদের মধ্যে টানাপোড়েনও দেখা গেছে। মুইজ্জু সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে বড় পদক্ষেপ নিয়েছে দেশের প্রধান বিরোধী দল ‘মালদিভিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টি (MDP)’।

প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সোলির দল ইতিমধ্যেই সরকারের বিরুদ্ধে অভিশংসনের (impeached) প্রক্রিয়া শুরু করার জন্য বিপুল সংখ্যক স্বাক্ষর সংগ্রহ করেছে বলে জানা গেছে। তার মানে কি সত্যিই মুইজ্জুর চেয়ার নড়বড়ে?

সূত্রের খবর অনুযায়ী, ভারতের মতো ‘বন্ধু’ দেশের সঙ্গে তিক্ততা বাড়ানোর জন্য শিগগিরই তার বিরুদ্ধে সংসদে অভিশংসন প্রস্তাব পেশ করা হতে পারে। আর তা পাস হলে মুইজ্জুকে সভাপতির পদ হারাতে হতে পারে বলে দাবি করেছেন কোনো কোনো বিশেষজ্ঞ।

আরও পড়ুনঃ  Ongoing Cold Weather: প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ক্লাস পিছিয়ে ১০টায়

মোহাম্মদ মুইজ্জুর বিদায় কি সম্ভব?

ওয়াকিবহাল সূত্রের দাবি, এটা সম্ভব। কারণ ব্যাখ্যা করে তারা বলছেন, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মুইজ্জু জয়ী হলেও মালদ্বীপের পার্লামেন্টে সোলিহার দলের সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে। তার উপরে, মালদ্বীপের গণতান্ত্রিক নেতারাও মুইজ্জুর বিরুদ্ধে অভিশংসন প্রস্তাব আনতে তাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন।

সূত্র মতে, উভয় বিরোধী দলের মোট ৩৪ জন সংসদ সদস্য মুইজ্জুর বিরুদ্ধে অভিশংসন প্রস্তাবকে সমর্থন করছেন। আর এর জন্য মুইজ্জুর ভারতবিরোধী অবস্থান যে দায়ী তাও স্পষ্ট হয়েছে দুই বিরোধী দলের যৌথ বিবৃতিতে। সেখানে ভারতের নাম না করে ট্যাঙ্করা বলেন, ‘যারা সব সময় দেশের উন্নয়নে সাহায্য করেছে, বিশেষ করে যারা দেশের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী বন্ধু, তাদের পররাষ্ট্রনীতি থেকে বাদ দেওয়া দীর্ঘমেয়াদি উন্নয়নের জন্য খুবই ক্ষতিকর।

আরও পড়ুনঃ  Mymensingh Accident News: ময়মনসিংহে ট্রাক ও পিকআপের সংঘর্ষে নিহত ৩ জন

About the Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like these

Share via
Copy link