ইন্টারস্টেলার চলচ্চিত্রটির মূলভাব কী? ইন্টারস্টেলার মুভির নেপথ্যে Time Dilation Explained

ইন্টারস্টেলার মুভির নেপথ্যে Time Dilation Explained

আজকে আমরা ইন্টারস্টেলার মুভিতে দেখানো Time Dilation Explained করবো। তো চলুন সময় নষ্ট না করে লেখাটি শুরু করি। ইন্টারস্টেলার চলচ্চিত্রটি সায়েন্স ফিকশন প্রেমিদের জন্য মাস্ট ওয়াচ এই মুভি। মুভিটির মূল কনসেপ্ট হচ্ছ্যে অন্য গ্রহের খোজ করা। আর তা করতে যেয়ে আবিষ্কার হয় অন্য কিছু। যা আজকের মূল আলোচ্য বিষয়। আমি আমাদের করা ভিডিও সহ উল্লেখ করেছি এই লেখাটিতে। আপনাদের যদি ভিডিও ভালো লাগে তবে চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে দিবেন।

Time Dilation Explained

বন্ধুরা, আপনাদের নিশ্চই মনকে লাড়িয়ে দেওয়ার ইন্টারস্টেলার মুভি দৃশ্য নিশ্চই মনে আছে। যখন একটি বিশাল ব্লাকহোলের কাছে মিলারস প্লানেটের মধ্যে অবতরন করে। এটাই টাইম ডাইলেশন সম্মন্ধে কথা বলার সঠিক জায়গা। আপনি চাইলে উইকিপিডিয়া থেকে টাইম ডায়ালেশন সম্মন্ধে জেনে আসতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ  এই অভ্যাস থাকা মানেই আপনি বুদ্ধিমান, মিলিয়ে দেখুন সেই তালিকায় আপনিও আছেন কিনা!
ইন্টারস্টেলার মুভির নেপথ্যে Time Dilation Explained

টাইম ডাইলেশন কনসেপ্ট আলবার্ট আইনস্টাইন দ্বারা প্রস্তাবিত এক থিউরি। যা আমাদের বলে যে, ব্রহ্মান্ডের সব জাগায় সময় একরকম হয়না, এটি গ্রাভেটি এবং স্পিডের উপর নির্ভর করে। ব্লাকহোলের মত বিশাল বস্তুর কাছে গ্রেভেটি অবিশ্বাস্য রকমের তীব্র হয়ে থাকে। যার কারনে কমজোর গ্রেভেটির স্থানের তুলনায় সময় অনেক ধীর গতির হয়ে যায়।

এখন কল্পনা করুন, আপনার কাছে দুইটি ঘড়ি আছে। একটি ব্লাকহোলের কাছে এবং একটি মহাকাশের অনেক দূরে। যখনি সেগুলি আলাদা আলাদা জায়গার চাপ অনুভব করে তখন ব্লাকহোলের পাশে থাকা ঘড়িটি ধীরে চলবে।

আসুন এটির একটি উদাহরন দেওয়া যাক, ইন্টারস্টেলারে ক্রু মেম্বার মিলারস প্লেনেটে খুব কম সময় অতিবাহিত করে, কিন্তু যখন সেখান থেকে স্পেসশিপে ফিরে আসে তখন তারা বুঝতে পারে টাইমডাইলেশনের ফলে পৃথিবীতে কয়েক বছর অতিবাহিত হয়ে গেছে। এটি এক বিশাল ব্লাকহোলের নিকট টাইম ডাইলেশনের চরম প্রভাবকে দর্শায়।

আরও পড়ুনঃ  বিএসসি নার্সিং এর বেতন কত এবং বিএসসি নার্সিং এর ভবিষ্যৎ

এটি শুধুমাত্র একটি মুভিই না – এটি এক বাস্তবিক জ্ঞান। কিন্তু এখন আপনি ভাবছেন যে আসলে কি টাইম ডাইলেশন আমাদের রোজকার জীবনে প্রভাব ফেলে। উত্তর- সাধারনত না। এটি ব্লাকহোলের মত এক্সট্রিম গ্রেভেটি যুক্ত বস্তুর কাছেই হয়ে থাকে। বাস্তবে জিপিএস সিস্টেম পৃথিবীর গ্রেভেটির কারনে ছোট টাইমডাইলেশন ছাড়া সঠিকভাবে কাজ করবে না।

হ্যা, আপনার জিপিএস সিস্টেমও আইনস্টাইনের থিউরি অফ রিলেটিভিটির উপর নির্ভর করে। বিজ্ঞান ও সাধারন জ্ঞান সম্মন্ধে জানতে ক্লিক করুন- এখানে

আপনার কাছে টাইম ডাইলেশন এর মত কনসেপ্ট আছে – ঠিক ইন্টারস্টেলারের মত। এটি একটি রিমাইন্ডার যা আমাদের ব্রহ্মান্ড এমন সব রহস্যে ভরা যেগুলো খোজ করা এখনো বাকি।

আপনি যদি আমাদের এই লেখাটি উপভোগ করে থাকেন এবং জ্ঞান অর্জন করে থাকেন তবে এটি শেয়ায়র করুন। আমি উপরে ভিডিও যুক্ত করে দিয়েছি তা দেখতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ  জেনে নিন স্কলারশিপ কিভাবে পাওয়া যায় - বিদেশে স্কলারশিপ পাওয়ার যোগ্যতা

About the Author

One thought on “ইন্টারস্টেলার চলচ্চিত্রটির মূলভাব কী? ইন্টারস্টেলার মুভির নেপথ্যে Time Dilation Explained

  1. খুব চমৎকার বিজ্ঞান বিষয়ক আলোচনা। যা আমার খুব প্রিয়। আমি আপনাদের লেখা প্রায়ই পড়ে থাকি। খুব চমৎকার প্রকাশনা এই সহবাংলা আইটি প্লাটফর্মটি। শুভ কামনা রইলো আপনাদের জন্য। শোভনের লেখাগুলো খুব প্রিয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like these

Share via
Copy link