নকল গুড়ের ভিড়ে যেভাবে খাঁটি গুড় চিনবেন, শিখে নিন

খাঁটি গুড়

খাঁটি গুড়: শীতকাল এলেই বাজারে গুড়ের মেলা শুরু হয়ে যায়। এই সময়টিতে গুড়ের গন্ধ সবাইকেই মুগ্ধ করে। শীতকালে নানান ধরনের পিঠা তৈরির জন্য ঘরে ঘরে উতসব লেগে যায়। সেই পিঠা বানানোর কাজ গুড় ছাড়া যেনো অসম্ভব।

গুড় শুধুমাত্র স্বাদেই না, গুড়ে রয়েছে অনেক স্বাস্থ্য উপকারিতার উপাদান। এইকারনে বিভিন্ন ডাক্তার এবং বিশেষজ্ঞরা চিনির পরিবর্তে গুড় খাবার জন্য পরামর্শ করে থাকে।

মানব শরীর থেকে অনেক দূষিত পদার্থ বের করে শরীর পরিষ্কার রাখতেও সাহায্য করে এই গুড়। এমনকি সর্দি কাশির সমস্যাও দূর করে এই গুড়। কিন্তু এই সময়ে বাজারে যে সমস্ত গুড় কিনতে পাওয়া যায় সেগুলির বেশিরভাগই কেমিক্যাল (Chemical) মিশ্রিত থাকে। যা প্রতিনিয়ত আমাদের শরীরের ক্ষতি করছে।

আরও পড়ুনঃ  চা খেলে কি ক্ষতি হয়, জেনে নিন দিনে কয় কাপ চা খাবেন - নইলে বিপদ হবে

এখন কথা হচ্ছে আপনি কিভাবে বুঝবেন আপনি দোকান থেকে যে গুড় কিনছেন তাতে কেমিক্যাল মিশ্রিত আছে কিনা? কালচে বা গাঢ় বাদামি হয়ে থাকে কেমিক্যাল ছাড়া গুড়ের রঙ।

গুড়ের রঙ যদি সাদা,হলুদ,লাল ইত্যাদি হয় তাহলে বুঝতে হবে সেগুলিতে কেমিক্যাল মেশানো রয়েছে। গুড়ের স্বাদ নোনতা বা তিতাভাব থাকে তাহলে আপনাকে অবশ্যই বুঝতে হবে গুড়ে কেমিক্যাল মেশানো হয়েছে।

খাঁটি গুড় খেলে যেসব উপকার পাওয়া যায়ঃ

১) প্রচুর পরিমানে ভিটামিন এ,বি,সি, ক্যালসিয়াম,ফসফরাস, গ্লুকোজ ও সুক্রোজ পাবেন গুড় মিশানো জলে।

২) আপনি যদি কুসুম গরম জলে গুড় মিশিয়ে পান করতে পারেন তবে অনেক রোগ আপনি প্রতিরোধ করতে পারবেন। এছাড়া আপনি যেনে অবাক হবেন যে গুড়ের জল সৌন্দর্য বৃদ্ধিতেউ বেশ দারুন ভুমিকা রাখে।

আরও পড়ুনঃ  Vitamin E-Skin Care: ভিটামিন ই ক্যাপসুল দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়

৩) এছাড়া গরম জলে গুড় মিশিয়ে পান করলে সর্দি-কাশিতে উপকার পাওয়া যায়। শীতে যাদের হাত-পা ঠান্ডা হয় তাদের জন্যও গুড়ের জল উপকারী।

৪) গুড় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও খনিজ উপাদানে ভরপুর। এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে এবং বিভিন্ন সংক্রমণ প্রতিরোধ করতেও সাহায্য করে। রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রাও বাড়ায় এই গুড়।

৫) প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকায় রক্তাস্বল্পতা রোগীদের জন্য গুড় খুবই উপকারী। এমনকি গুড় রক্তকে বিশুদ্ধ রাখতে সাহায্য করে।

৬) গুড়ের পানি ওজন কমাতেও সাহায্য করে। এছাড়াও আর্থ্রাইটিস এবং হাড়ের অন্যান্য সমস্যা দূর করে এই গুড়।

স্বাস্থ্য সম্পর্কিত আরও তথ্য জানতে আমাদের সহবাংলা আইটির সাথেই থাকুন।

FAQs:

কীভাবে খাঁটি গুড় চিনবেন?

গুড়ের রঙ যদি সাদা,হলুদ,লাল ইত্যাদি হয় তাহলে বুঝতে হবে সেগুলিতে কেমিক্যাল মেশানো রয়েছে। গুড়ের স্বাদ নোনতা বা তিতাভাব থাকে তাহলে আপনাকে অবশ্যই বুঝতে হবে গুড়ে কেমিক্যাল মেশানো হয়েছে।

আরও পড়ুনঃ  Best Time To Eat Fish: শীতে মাছ খাওয়া বেশি জরুরি কেন? জানতে পড়ুন

About the Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like these

Share via
Copy link