বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কোন কাজের চাহিদা বেশি | ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কোন কাজের চাহিদা বেশি
Contents
ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কোন কাজের চাহিদা বেশিTranslation Work From Home JobsFreelance Voice Over Jobsসোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজ করাVideo Editing Jobs Work From HomeFreelance Software Developer Jobs Part TimeFreelance Mobile App Developer JobsWriting Jobs Online For Studentsগ্রাফিক ডিজাইন জবWeb Design Job in Bangladeshআমাদের আজকের শেষ কথাঃফ্রিল্যান্সিং এর সবচেয়ে জনপ্রিয় কাজ কোনটি?ফ্রিল্যান্সিং কোথায় শুরু করব? ফ্রিল্যান্সিং করতে কি কি লাগে?ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কতজন কাজ করে?বাংলাদেশে কতজন ফ্রিল্যান্সার আছে?২০২৫ সালে ফ্রিল্যান্সারদের উপার্জন কত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে?কিভাবে আপওয়ার্কে একটি প্রকল্প নির্বাচন করব?আপওয়ার্কে প্রজেক্ট পাওয়া কত সহজ? কিভাবে আপওয়ার্কে প্রথম ক্লায়েন্ট পাওয়া যায়?

বন্ধুরা আপনারা এই “ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কোন কাজের চাহিদা বেশি” পোষ্টে ফ্রিল্যান্সিং সম্মন্ধে অনেক ধারনা পাবেন। তাই এড়িয়ে না যেয়ে সম্পূর্নটি পড়ুন।

ফ্রিল্যান্সিং এর চেয়ে ঘরে বসে অনলাইনে পার্ট টাইম বা ফুল টাইম আয় করার আর কোন উপায় মনে হয় নেই। বিশ্বব্যাপী লক্ষ লক্ষ মানুষ বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করছে। আপনার কিছু ফ্রিল্যান্সিং করার যোগ্যতা থাকলে কাজগুলো সাধারণত কিছু বিশেষ মার্কেটপ্লেস থেকে পাওয়া যায়। এই সব মার্কেটপ্লেসে যে কেউ চাইলে তার নিজের স্কিল কাজে লাগিয়ে ইনকাম করতে পারে খুব সহজেই।

ফ্রিল্যান্সিং এর এই বৃহৎ বিশ্বে কাজ খোঁজা আজকাল খুব একটা সহজ নয়। অনেক সময় দেখা গেছে কাজ না পেয়ে মানুষ হতাশ হয়ে ফ্রিল্যান্সিং ছেড়ে দেয়। কিন্তু তবে বর্তমান সময়ে কিছু কিছু কাজ রয়েছে যেগুলো আপনি যদি আয়ত্ত করতে পারেন তাহলে অনেক দ্রুত সময়ের মধ্যেই যেকোনো ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস থেকে কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা অনেকাংশে বেড়ে যায়। সেসকল কাজগুলোর ডিমান্ড বেশি থাকায় আপনি ভালো পরিমান ফি ও চার্জ করতে পারবেন। 

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কোন কাজের চাহিদা বেশি

আমাদের আজকের এই আর্টিকেলে আমরা ফ্রিল্যান্সিং এ যেসকল কাজের চাহিদা বেশি এবং আপনি খুব সহজেই যেগুলো শিখে টাকা ইনকাম করতে পারবেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। আমাদের আর্টিকেলটি ভালো ভাবে পড়লে আশা করা যায় ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে আপনাদের প্রধান চিন্তার একটি সমাধান পেয়ে যাবেন।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কোন কাজের চাহিদা বেশি

আপনি যদি অনলাইনে ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার কথা ভাবছেন, তাহলে অবশ্যই আপনার নিজের অভিজ্ঞতা, দক্ষতা এবং জ্ঞান আছে এমন কাজটি করা উচিত। কারণ, সঠিক জ্ঞান এবং কাজের অভিজ্ঞতা ছাড়া আপনি আপনার ক্লায়েন্টকে সেরা ফলাফল দিতে পারবেন না। সুতরাং, আপনি যে কাজগুলিতে ভাল এবং যেগুলির প্রতি আপনার সম্পূর্ণ জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতা রয়েছে সেগুলি দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করার কথা বিবেচনা করুন।

তবে আপনি চাইলে যে ফ্রিল্যান্সিং কাজের চাহিদা বেশি সেগুলো শিখে তারপর কাজ শুরু করতে পারেন। এতে করে আপনার নিজের দক্ষতা বাড়ার সাথে সাথে পকেটে টাকা আসতে শুরু করবে। আপনি যদি আজকের নিবন্ধে যে সমস্ত চাহিদাপূর্ণ ফ্রিল্যান্সিং কাজের কথা বলতে যাচ্ছি তা শিখতে চান তবে আপনি অনলাইনে অনেক বিনামূল্যের কোর্স পাবেন। সেখান থেকে আপনি যা পছন্দ করেন তা শিখে কাজ শুরু করতে পারেন। তবে আমি বলব ভালোভাবে দীর্ঘমেয়াদি কাজ করতে চাইলে কোনো প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষন নিয়ে নিন। আপনি চাইলে ফ্রিল্যান্সিং সম্মন্ধে এটিও পড়তে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

Translation Work From Home Jobs

এরকম অনেক কোম্পানি বা সংগঠন রয়েছে যারা ফ্রিল্যান্সারদের দিয়ে বিভিন্ন অনুবাদ কাজ করিয়ে থাকে। এখানে ইংরেজি থেকে বাংলা বা বাংলা থেকে ইংরেজি বা অন্যান্য কোনো ভাষাতে টেক্সট ফাইল অনুবাদ করতে দেওয়া হয়। বর্তমান সময়ে এই ধরনের কাজ করে ফ্রিল্যান্সাররা ভাল টাকা উপার্জন করতে পারে।

আরও পড়ুনঃ  Online Income এর রাজা Self Shopping

Freelance Voice Over Jobs

একজন voiceover artist হিসেবে আপনাকে ক্লায়েন্ট এর হয়ে নিজের ভয়েস দিয়ে ভয়েস রেকর্ড করে অডিও কন্টেন্ট তৈরি করতে হয়। সেটা হতে পারে কোনো পডকাস্ট বা ওয়েবসাইট কন্টেন্ট বা মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে কোনো মিডিয়া। বাংলাদেশে এই ধরনের কাজ করার মতো ফ্রিল্যান্সার এর সংখ্যা তুলনামূলক কম আছে। কিন্তু বাইরের ফ্রিল্যান্সিং দুনিয়ায় এ ধরনের কাজ এর জন্য অনেক বেশি চাহিদা রয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজ করা

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার হিসেবে আপনাকে ক্লায়েন্ট এর হয়ে তাদের অফিশিয়াল সোশ্যাল মিডিয়া পেজ / একাউন্টগুলো পরিচালনা করতে হবে। পোস্ট লিখে পাবলিশ করা, কমেন্ট এর রিপ্লাই, লোকজনের সাথে সংযোগ স্থাপন করা ইত্যাদি এই ধরণের কাজ গুলো আপনার করতে হবে। বাংলাদেশে এই ধরনের কাজের চাহিদা অনেক বেশি রয়েছে। 

Video Editing Jobs Work From Home

একজন ফ্রিল্যান্সার হিসেবে ভিডিও এডিটিং এর কাজ করেও অনেক বেশি উপার্জন করা সম্ভব। আজকাল প্রায় প্রত্যেক কোম্পানি, সংগঠন ইত্যাদির একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে থাকে। আর ভিডিও তৈরি করার পর সেগুলো এডিট করার জন্য তারা আলাদা ভাবে একজন ফ্রিল্যান্স ভিডিও এডিটর খুঁজে থাকে।

Freelance Software Developer Jobs Part Time

একজন সফটওয়্যার ডেভেলপার হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং কাজ করে আপনারা প্রচুর টাকা ইনকাম করার সুযোগ পাবেন। এই কাজে আপনাদের আলাদা আলাদা সফটওয়্যার প্রোগ্রাম গুলোকে ডিজাইন এবং ডেভেলপ করতে হবে। এছাড়া, এই কাজে Java, HTML, PHP, XML ইত্যাদিরও প্রয়োজন হবে। যদি একজন সফটওয়্যার ডেভেলপার হিসেবে আপনার ভালো অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা থাকে, তাহলে নিয়মিত প্রচুর কাজ পাবেন।

Freelance Mobile App Developer Jobs

আপনারা যদি মোবাইল অ্যাপস তৈরি করতে জানেন তাহলে অনলাইনে প্রচুর কাজ পেয়ে যাবেন। আজকের বেশিরভাগ ব্যবসা বা কোম্পানিগুলো নিজেদের অ্যাপস তৈরি করে থাকে। আলাদা আলাদা কাজের জন্যে আলাদা আলাদা রকমের অ্যাপস থেকে থাকে। বর্তমানে সবচেয়ে অধিক চাহিদা থাকা ও সবচেয়ে অধিক টাকা ইনকাম করার মতো ফ্রীল্যানসিং কাজ গুলোর মধ্যে একটি হলো অ্যাপস তৈরি করার কাজ।

আরও পড়ুনঃ  ইউটিউব মনিটাইজেশন পলিসি ২০২৩ | ইউটিউব মনিটাইজেশন পলিসি

Writing Jobs Online For Students

একজন দক্ষ ফ্রিল্যান্স রাইটার বা কন্টেন্ট রাইটার এর চাহিদা এখনকার সময়ে সাংঘাতিক পরিমানে বৃদ্ধি পেয়েছে। ওয়েবসাইট, ব্লগ, কোম্পানি পেজ, সোশ্যাল মিডিয়া ইত্যাদি বিভিন্ন অনলাইন প্লাটফর্ম গুলোর জন্য আজ ফ্রিল্যান্স কন্টেন্ট রাইটারদের হায়ার করা হচ্ছে। এখানে আপনার সুন্দরভাবে SEO অপটিমাইজড আর্টিকেল লেখার কৌশল জানার প্রয়োজন হবে।

গ্রাফিক ডিজাইন জব

গ্রাফিক ডিজাইনিং এর কাজগুলোর চাহিদা অনলাইন মার্কেটে এখন সাংঘাতিক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। মার্কেটিং, এডভার্টাইজিং, রিপোর্টস, ক্যাটালগস, নিউজলেটারস, বিজনেস কার্ডস, ওয়েবসাইটস, প্রোডাক্ট প্যাকেজিং ইত্যাদি বিভিন্ন ক্ষেত্রে কোম্পানিগুলো দক্ষ ফ্রিল্যান্স গ্রাফিক্স ডিজাইনার হায়ার করে থাকে। এছাড়া গ্রাফিক্স ডিজাইনিং শিখতে আহামরি বেশি সময় আপনার লাগবে না। এই কাজের ক্ষেত্রে আপনাকে মূলত ফটোশপ এবং ইলাস্ট্রাটার সম্পর্কিত স্কিলের প্রয়োজন হবে।

Web Design Job in Bangladesh

যদি আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে থাকেন এবং বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে নিয়মিত কাজ খুঁজতে থাকেন তাহলে ওয়েব ডিজাইনিং এর সাথে রিলেটেড অনেক কাজ দেখতে পারবেন। বর্তমান সময়ে প্রত্যেক কোম্পানি বা সংগঠনগুলোর নিজের একটি ওয়েবসাইট এর প্রয়োজন হয়ে থাকে।

আর এই কাজের জন্যে প্রয়োজন হয় একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনারের। আপনি ওয়েব ডিজাইনিং এর কাজগুলো যদি সঠিক ভাবে করে সঠিক সময়ে জমা দিতে পারেন তাহলে নিয়মিত অনলাইনে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। ওয়েব ডিজাইনিং এর বেসিক কাজ আপনি কেবল মাত্র কয়েক মাসের অনলাইন কোর্স করে শিখে নিতে পারবেন। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ কি পড়ুন।

আমাদের আজকের শেষ কথাঃ

যখন ফ্রিল্যান্সিংয়ের কথা আসে, তখন আপনি কোন বিষয়ে ভাল দক্ষতা আছে সেটিতে ফোকাস করুন। আশা করি আপনি খুব তাড়াতাড়ি ফ্রিল্যান্সিংয়ে সফলতা পাবেন। কমেন্টে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কোন কাজের চাহিদা বেশি বিষয়ে আমাদের নিবন্ধটি সম্পর্কে আপনি কী মনে করেন তা আমাদের জানান। নতুন প্রযুক্তি নিবন্ধ এবং বিভিন্ন টিপস জানার জন্য আমাদের ওয়েবসাইটে চোখ রাখুন। এছাড়া আপনি চাইলে আমাদের ফেসবুক পেইজে লাইক করে আমাদের সাথে থাকতে পারেন।

অনলাইনে ইনকামের জন্য কয়েকটি লেখা>>>

FAQs: ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কোন কাজের চাহিদা বেশি

ফ্রিল্যান্সিং এর সবচেয়ে জনপ্রিয় কাজ কোনটি?

ফ্রিল্যান্সিং জগতে বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় কাজ হচ্ছে গ্রাফিক্স ডিজাইন। গ্রাফিক্স ডিজাইন এর চাহিদা বর্তমানে অনেক বেশি। অনলাইনে এমন কোন সেক্টর নেই যেখানে গ্রাফিক্স ডিজাইন এর প্রয়োজন নেই। ব্যক্তিগত ব্লগ থেকে শুরু করে বড় বড় ইন্ডাস্ট্রি পর্যন্ত সব জায়গাতেই গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ রয়েছে।

আরও পড়ুনঃ  ঘরে বসে টাকা আয় করতে চাই | ঘরে বসে মোবাইলে আয়

ফ্রিল্যান্সিং কোথায় শুরু করব?

আমরা আপওয়ার্ক বা PeoplePerHour-এর মতো জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেসগুলি বেছে নেওয়ার পরামর্শ দিই, যেখানে আপনি প্রজেক্টের জন্য আবেদন করতে পারেন বা নিজের পোস্ট করতে পারেন৷ ফ্লেক্সজবস হল আরেকটি দুর্দান্ত বিকল্প যা আপনাকে বিস্তৃত দূরবর্তী এবং নমনীয়-শিডিউলের চাকরি থেকে বেছে নিতে দেয়।

ফ্রিল্যান্সিং করতে কি কি লাগে?

আপনি যদি একজন ফ্রিল্যান্সার হতে চান, তাহলে আপনার প্রতিদিনের কাজের রুটিন বজায় রাখা উচিত, একসাথে বেশ কয়েকটি অ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে কাজ করার জন্য প্রস্তুত থাকা উচিত এবং কাজের একটি অবিচ্ছিন্ন প্রবাহ বজায় রাখার জন্য ক্রমাগত নতুন প্রকল্পগুলির সন্ধান করা উচিত। আপনি যদি এখনও পুরো সময় কাজ করে থাকেন তবে অবিলম্বে আপনার চাকরি ছেড়ে দেবেন না।

ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কতজন কাজ করে?

বিশ্বব্যাপী কতজন ফ্রিল্যান্সার আছে? বিশ্বজুড়ে প্রায় 1.57 বিলিয়ন মানুষ স্ব-নিযুক্ত। এই সংখ্যাটি বিশ্বব্যাপী কর্মশক্তির প্রায় অর্ধেক (46.4%)।

বাংলাদেশে কতজন ফ্রিল্যান্সার আছে?

বাংলাদেশ ফ্রিল্যান্সার ডেভেলপমেন্ট সোসাইটি (বিএফডিএস) সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশে অন্তত 10,50,000 সক্রিয় ফ্রিল্যান্সার রয়েছে।

২০২৫ সালে ফ্রিল্যান্সারদের উপার্জন কত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে?

২০২৫ সালে আরো ১০ লাখ নতুন ফ্রিল্যান্সার তৈরী হবে এবং উপার্জন ৫ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যাবে। প্রতিমন্ত্রী পলক আজ শুক্রবার সকাল ১০টায় সিংড়া গোল-ই-আফরোজ সরকারি কলেজ মাঠে ‘সিংড়া আইসিটি ফ্রিল্যান্সিং ক্যাম্প’ উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

কিভাবে আপওয়ার্কে একটি প্রকল্প নির্বাচন করব?

আপওয়ার্ক হোম পেজে, উপরের নেভিগেশন বারে ট্যালেন্ট খুঁজুন ট্যাবের অধীনে, ব্রাউজ করুন এবং প্রকল্পগুলি কিনুন নির্বাচন করুন। আপনার Upwork অনুসন্ধান বারে টাইপ করা শুরু করুন। ড্রপ-ডাউন পরামর্শগুলিতে আপনি প্রতিভা, প্রকল্প এবং চাকরির মধ্যে বেছে নিতে পারবেন। প্রকল্প নির্বাচন করুন।

আপওয়ার্কে প্রজেক্ট পাওয়া কত সহজ?

অভিজ্ঞ আপওয়ার্ক ফ্রিল্যান্সাররা প্রায়শই ক্লায়েন্টদের দ্বারা কাজের জন্য আমন্ত্রিত হন। যাইহোক, নতুনদের সবসময় এই ভাগ্য নাও থাকতে পারে, তাই আপনাকে সক্রিয়ভাবে প্রস্তাব পাঠাতে হবে । যাইহোক, প্রতিটি কাজের জন্য একই কপি-পেস্ট করা প্রস্তাব পাঠাবেন না।

কিভাবে আপওয়ার্কে প্রথম ক্লায়েন্ট পাওয়া যায়?

ফ্রিল্যান্সার হিসাবে ক্লায়েন্টদের পাওয়ার জন্য একটি কঠিন পেশাদার পিচ অপরিহার্যUpwork পোস্টের কাজের ক্লায়েন্ট, এবং একজন ফ্রিল্যান্সার হিসাবে, আপনি আপনার রেট এবং একটি পিচ সহ একটি প্রস্তাব জমা দিতে পারেন। একটি পিচ বা প্রস্তাব পাঠানোর সময়, আপনি ব্যাখ্যা করতে চান কেন আপনি কাজের জন্য সেরা ব্যক্তি এবং যেকোনো প্রাসঙ্গিক উদাহরণ যোগ করুন।

About the Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like these

Share via
Copy link