ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ কি | ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ কি

প্রিয় পাঠক “ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি” ও “ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ কি” আপনারা অনেকেই গুগলের মাধ্যমে এ বিষয়ে জানতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। আজকের আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ কি
ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ কি

Online Income এর জন্য নানান মাধ্যমের মধ্যে একটি মাধ্যম হচ্ছে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট। আজকাল ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সমস্ত প্রযুক্তিগত কাজে একটি বিশাল ভূমিকা পালন করে। বর্তমান প্রেক্ষাপটে প্রায় সবাই স্মার্টফোন ব্যবহারকারী। প্রযুক্তিগতভাবে অগ্রসর না হলে আমরা বর্তমান সময়ে আসতাম না। আপনারা অনেকেই ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জানতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন, কিন্তু আপনি সেই সব তথ্য সঠিকভাবে কোথাও পান না। চলুন আজকের আর্টিকেলে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সম্পর্কে জেনে নেই।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি

আসলে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট হচ্ছে যে কোন ওয়েব সার্ভারে তথ্য ইন্টারনেট জমা রাখা এবং ওয়েব ব্রাউজারের মাধ্যমে দর্শনযোগ্য করার প্রক্রিয়া, যাকে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট বলা হয়। বর্তমান প্রেক্ষাপটে অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি পেশা হচ্ছে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট। বাংলাদেশ সহ বিশ্বের প্রায় সকল দেশ থেকে বিভিন্ন মানুষ এই পেশার ওপর ভিত্তি করে নিজেদের জীবিকা নির্বাহ করে থাকে।

যে ব্যক্তি একটি ওয়েবসাইট তৈরি অথবা ডেভলপ এর কাজ করে সে ব্যক্তি কে বলা হয়ে থাকে ওয়েব ডেভেলপার।একজন ওয়েব ডেভেলপার যেকোনো ওয়েবসাইটের ডিজাইন অথবা চিত্র অনুসরন করে ক্লায়েন্ট সাইট ভাষা ও server-site ভাষাগুলো ব্যবহার করে একটি ওয়েবসাইট তৈরি অথবা ডেভলপ করে থাকে।

 

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট-এর প্রচলিত সংজ্ঞাগুলো হচ্ছেঃ

  1. একটি ওয়েবসাইটকে তৈরী করা থেকে শুরু করে ইন্টারনেটে লাইভ করা পর্যন্ত যে সকল কাজ করতে হয় সেই সকল কাজ গুলোকে একসাথে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট বলা হয়।
  2. ওয়েব সার্ভারে জমা রাখা তথ্য ইন্টারনেট এর মাধ্যমে দর্শন যোগ্য করার সফটওয়্যার তৈরী করাকে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট বলা হয়।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ কি

মূলত web-development তিনটি ধাপে বিভক্ত।

  1. ফ্রন্ট এন্ড ওয়েব ডেভলপমেন্ট
  2. ব্যাক এন্ড ওয়েব ডেভেলপমেন্ট
  3. ওয়েব মাস্টারিং
আরও পড়ুনঃ  ফ্রিল্যান্সিং এ বদলে গেছে অনেক কিছু, ২০২৪ এ কি আপনার ফ্রিল্যান্সিং করা উচিত?

ফ্রন্ট এন্ড ওয়েব ডেভলপমেন্ট

একজন ওয়েব ডিজাইনারের যেকোনো অঙ্কিত একটি চিত্র অথবা যেকোনো পরিকল্পনা অনুসারে ওয়েবসাইটের দৃশ্যমান স্ট্যাটিক ওয়েব পৃষ্ঠা তৈরি করাই হচ্ছে ফ্রন্ট এন্ড ওয়েব ডেভলপমেন্ট।ওয়েব ডেভেলপমেন্টের প্রথম ধাপ হচ্ছে ফ্রন্ট এন্ড ওয়েব ডেভলপমেন্ট।

অবশ্যই জানুন>>
  1. মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট App | বাংলাদেশে টাকা আয় করার Apps
  2. Online Income এর রাজা Self Shopping
  3. বাংলাদেশে বিজ্ঞাপন দেখে টাকা আয় | এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট 2023

আর যে ব্যক্তি ওয়েব ডেভেলপার ওয়েব ডিজাইনারের নিকট হতে পাওয়া চিত্র থেকে বা ওয়েব ডিজাইনে পরিকল্পনা অনুসারে স্ট্যাটিক ওয়েব পৃষ্ঠা তৈরি করে থাকেন তাকে বলা হয় ফ্রন্ট এন্ড ওয়েব ডেভেলপার। মূলত একজন ফ্রন্ট এন্ড ওয়েব ডেভলপারের স্ট্যাটিক ওয়েবপৃষ্ঠা তৈরির কলাকৌশল সম্পর্কে অনেক অভিজ্ঞতা এবং গভীর জ্ঞান থাকে।

একজন ফ্রন্ট এন্ড ওয়েব ডেভেলপার ক্লায়েন্ট সাইড ভাষা (এইচটিএমএল, সিএসএস, জাভাস্ক্রিপ্ট ) ব্যবহার করে স্ট্যাটিক ওয়েব পৃষ্ঠা তৈরী করে থাকে।ফ্রন্ট এন্ড ওয়েব ডেভেলপারের তৈরী স্ট্যাটিক ওয়েব পৃষ্ঠা অনুসরন করে ব্যাক এন্ড ওয়েব ডেভেলপার ওয়েবসাইটের ব্যাক এন্ড তৈরী বা ডেভেলপ করে।

ব্যাক এন্ড ওয়েব ডেভেলপমেন্ট

স্ট্যাটিক ওয়েব পৃষ্ঠাকে ডাইনামিক ওয়েব পৃষ্ঠায় রূপান্তর করায় ব্যাক-এন্ড ওয়েব ডেভেলপমেন্ট। ব্যাক-এন্ড ওয়েব ডেভেলপমেন্ট ওয়েব ডেভেলপমেন্টের প্রথম ধাপ। যে ওয়েব ডেভেলপার স্ট্যাটিক ওয়েব পৃষ্ঠাকে ডাইনামিক ওয়েব পৃষ্ঠায় রূপান্তর করে তাকে ব্যাক-এন্ড ওয়েব ডেভেলপার বা ব্যাক-এন্ড ডেভেলপার বলা হয়।

একজন ব্যাক-এন্ড ওয়েব ডেভেলপার ডাইনামিক ওয়েব পৃষ্ঠা তৈরীর কলাকৌশল সম্পর্কে গভীর জ্ঞান থাকে। একজন ব্যাক-এন্ড ওয়েব ডেভেলপার সার্ভার-সাইড ভাষা ব্যবহার করে ডাইনামিক ওয়েব পৃষ্ঠা তৈরী করে থাকে ব্যাক-এন্ড ওয়েব ডেভেলপার ফ্রন্ট-এন্ড ওয়েব ডেভেলপারের তৈরী স্ট্যাটিক ওয়েব পৃষ্ঠা বা ওয়েব ডিজাইনারের তৈরী স্ট্যাটিক ওয়েব পৃষ্ঠাকে ডাইনামিক ওয়েব পৃষ্ঠায় রূপান্তর করে।

ওয়েব মাস্টারিং

এই তৃতীয় ধাপের ব্যাখ্যা এখনও পর্যন্ত সঠিকভাবে পাওয়া যায়নি। যখনই আমরা এর ব্যাখ্যা পেয়ে যাব সাথে সাথেই আপনাদেরকে এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে জানানো হবে।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কত প্রকার

ওয়েব ডেভলপমেন্টকে তিনটি স্তরে বিভক্ত করা যেতে পারে: ক্লায়েন্ট-সাইড কোডিং (সম্মুখভাগ), সার্ভার-সাইড কোডিং (ব্যাকএন্ড) এবং ডাটাবেস প্রযুক্তি।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কত প্রকার
ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কত প্রকার

Client-side

ক্লায়েন্ট-সাইড স্ক্রিপ্টিং, বা ফ্রন্টএন্ড ডেভলপমেন্ট, শেষ ব্যবহারকারী প্রত্যক্ষভাবে অভিজ্ঞতার সাথে বোঝায়। ক্লায়েন্ট-সাইড কোডটি একটি ওয়েব ব্রাউজারে কার্যকর করা হয় এবং লোকেরা কোনও ওয়েবসাইট দেখার সময় তারা কী দেখে তা সরাসরি সম্পর্কিত। লেআউট, ফন্ট, রঙ, মেনু এবং পরিচিতি ফর্মগুলির মতো বিষয়গুলি সমস্তই সম্মুখভাগ দ্বারা চালিত।

আরও পড়ুনঃ  গুগল থেকে ৪ টি উপায়ে কিভাবে টাকা আয় করব

Server-side

সার্ভার-সাইড স্ক্রিপ্টিং, বা ব্যাকএন্ড ডেভলপমেন্ট, পর্দার আড়ালে কী ঘটে যায় সে সম্পর্কে। ব্যাকএন্ড মূলত কোনও ওয়েবসাইটের সেই অংশ যা ব্যবহারকারী আসলে দেখেন না। এটি ডেটা সংরক্ষণ এবং সংগঠিত করার জন্য, এবং ক্লায়েন্ট-পক্ষের সমস্ত কিছু সুচারুভাবে চলমান তা নিশ্চিত করার জন্য দায়বদ্ধ। এটি সম্মুখভাগের সাথে যোগাযোগ করে এটি করে। যখনই ক্লায়েন্টের পাশে কিছু ঘটে – বলুন, কোনও ব্যবহারকারী একটি ফর্ম পূরণ করে – ব্রাউজারটি সার্ভার-সাইডে একটি অনুরোধ প্রেরণ করে। সার্ভার-সাইডটি ফ্রন্টএন্ড কোড আকারে প্রাসঙ্গিক তথ্যের সাথে “প্রতিক্রিয়া জানায়” যা ব্রাউজারটি তখন ব্যাখ্যা এবং প্রদর্শন করতে পারে।

Database technology

ওয়েবসাইটগুলি ডাটাবেস প্রযুক্তির উপরও নির্ভর করে। ডাটাবেসে সমস্ত ফাইল এবং সামগ্রী রয়েছে যা কোনও ওয়েবসাইটের কাজ করার জন্য প্রয়োজনীয়, এটিকে এমনভাবে সংরক্ষণ করা হয় যাতে এটি পুনরুদ্ধার, সংগঠিত, সম্পাদনা এবং সংরক্ষণ করা সহজ করে। ডাটাবেসটি একটি সার্ভারে চলে এবং বেশিরভাগ ওয়েবসাইটগুলি সাধারণত কিছু প্রকারের রিলেশনাল ডাটাবেস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (আরডিবিএমএস) ব্যবহার করে।

সংক্ষিপ্তসার হিসাবেঃ

ফ্রন্টএন্ড, ব্যাকএন্ড এবং ডাটাবেস টেকনোলজিগুলি একটি সম্পূর্ণ কার্যকরী ওয়েবসাইট বা অ্যাপ্লিকেশন তৈরি এবং পরিচালনা করতে একসাথে কাজ করে এবং এই তিনটি স্তর ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর ভিত্তি তৈরি করে।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর ভবিষ্যৎ

এই প্রবন্ধের পূর্ববর্তী অংশ পড়ে আপনি হয়তো জেনেছেন যে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখা মানে প্রোগ্রামিং ভাষা এবং ওয়েব ডিজাইনিং শেখা। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার জন্য আপনাকে কিছু জনপ্রিয় প্রোগ্রামিং ভাষা আয়ত্ত করতে হবে। আর্টিকেলের এই অংশে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করব কিভাবে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে হয় এবং কোন প্রোগ্রামিং ভাষা শিখতে হয়।

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর ভবিষ্যৎ
ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর ভবিষ্যৎ

ইন্টারনেট এর জগতের শুরু বা শেষ বলতে আসলে কিছু নেই। ওয়েবসাইটও এমন একটি জায়গা যার শুরু আছে কিন্তু শেষ নেই। সুতরাং ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট এর কাজের ক্ষেত্রেও তাই সম্ভাবনাও অনেক বেশি! সারাবিশ্বেই বর্তমানে বিভিন্ন জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস গড়ে উঠেছে। এগুলোর মধ্যে আপওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার, ফাইভার ইত্যাদি অন্যতম। জনপ্রিয় অনলাইন মার্কেটপ্লেস ওডেস্কে প্রায় সবসময়ই ওয়েব ডেভেলপমেন্ট নিয়ে হাজার হাজার ধরনের  কাজ থাকে।

ফ্রিল্যান্সারে রয়েছে ২০  হাজারেরও বেশি ওপেন জব। এদের প্রজেক্টে ঘন্টা প্রতি গড় রেট ২৫ ডলার থেকে শুরু করে ১৫০ ডলার পর্যন্ত হয়ে থাকে। উত্তরোত্তর এই রেট শুধু বাড়ছেই। কাজের প্রবৃদ্ধি দেখলেই বুঝা যায় কাজের চাহিদা কত বেশি বাড়ছে। আশা করি বুঝতেই পারছেন, ক্যারিয়ারের ভবিষ্যত কেমন হতে পারে!

আরও পড়ুনঃ  সোশ্যাল মিডিয়া থেকে টাকা উপার্জন করার উপায়

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে কি কি লাগে

  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখতে হলে সবার আগে  আপনার একটি নিজস্ব কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ডিভাইস প্রয়োজন হবে। তাই শুরুতে এটি ক্রয়ের ব্যবস্থা করে নিন।
  • পরবর্তীতে, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার জন্য আপনার প্রচুর ধৈর্য্য শক্তি ও মনোযোগ প্রয়োজন হবে।
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সহ যেকোনো কাজ শেখার জন্য আপনার প্রচুর আগ্রহ থাকতে হবে। তাই ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার জন্য আগ্রহ বাড়াতে হবে।
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ শুরু করার জন্য আপনার হাতে পর্যাপ্ত সময় থাকতে হবে। কারণ ওয়েব ডেভেলপমেন্ট খুব সূক্ষ একটি বিষয়।
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর আগে ওয়েব ডিজাইন সম্পর্কে হাল্কা ধারনা রাখতে হবে। তাই Adobe Photoshop সম্পর্কে মোটামুটি ধারণা আগে থেকেই নিয়ে নিন।
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শেখার ক্ষেত্রে ইংরেজী খুব ভালোভাবে না জানলেও মোটামুটি ভাবে জানতেই হবে। তাই বেসিক ইংরেজি শিখে নিন।
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট যেহেতু একটি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ, তাই এটিতে সৃজনশীল চিন্তাভাবনার প্রয়োজন হবে। আপনার ভাল সৃজনশীল চিন্তা শক্তি থাকলে কাজ করতে সহজ হবে।
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ শেখার আগে আপনার ডেস্কটপ বা ল্যাপটপে কিছু গুরুত্বপূর্ণ সফটওয়্যার ইন্সটল করা প্রয়োজন হবে। এগুলোর মধ্যে NotePad++ Adobe Dreamweaver অন্যতম। তাই এগুলো আগেই ইন্সটল করে নিন।
অবশ্যই জানুন>>
  1. মোবাইল দিয়ে টাকা আয় বিকাশে পেমেন্ট App | বাংলাদেশে টাকা আয় করার Apps
  2. Online Income এর রাজা Self Shopping
  3. বাংলাদেশে বিজ্ঞাপন দেখে টাকা আয় | এড দেখে টাকা ইনকাম বিকাশে পেমেন্ট 2023

আমাদের শেষ কথা

প্রিয় পাঠক, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কি এবং ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর কাজ কি সম্পর্কে বিভিন্ন ধরনের তথ্য নিয়ে আজকের নিবন্ধটি আপনাদের সামনে তুলে ধরা হলো। আশা করি আজকের আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে এবং ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সম্পর্কে বুঝতে পেরেছেন। যাইহোক, আপনার যদি এই বিষয়ে কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকে, আপনি অবশ্যই মন্তব্যের মাধ্যমে আমাদের জানাতে পারেন। এছাড়া আমরা একটি অনলাইনে আয় করার মত ট্রাস্টেড Apps শেয়ার করেছি। আপনারা এপস এ কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন। এছাড়া আপনারা আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে আমাদের ফেসবুক পেইজের সাথে যুক্ত থাকুন।

FAQs:

No schema found.

About the Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like these

Share via
Copy link