১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসের কবিতা – কাজে লাগবে সব কাজেই

১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসের কবিতা

১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসের কবিতা নিয়ে আজকের এই ব্লগ পোস্ট। ১৬ ডিসেম্বর বাঙালি জাতির এক অনন্য গৌরবোজ্জ্বল দিন। দীর্ঘ ৯মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিযুদ্ধ২৩ বছরের রাজনৈতিক সংগ্রামের মাধ্যমে ১৯৭১ সালের এই দিনে আমরা চূড়ান্ত বিজয় লাভ করি। বিজয় মানে কবিতা। বিজয় দিবসে শহীদদের স্বরনে ১৬ই ডিসেম্বর আমরা আনুষ্ঠানিকতার সাথে পালন করে থাকি। এই দিনে বিভিন্ন স্কুলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিজয় দিবসের কবিতা আবৃত্তি হয়ে থাকে।

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানানোর এক বিশেষ রীতি রয়েছে। আজকের পোস্টটি সাজানো হয়েছে ১৬ই ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস কবিতা নিয়ে। ১৬ ডিসেম্বরের বিজয় দিবস কবিতা সমূহ এখানে আমরা বিজয়ের কবিতা শেয়ার করেছি।

১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসের কবিতা সমূহ

মোঃ রাকিবুল ইসলাম

হয়নি দেখা রক্তগঙ্গা

নয়তো ভাইয়ের লাশ,

তাঁদের জন্য আজ আমাদের

স্বাধীন দেশে বাস।

তাঁদের জন্য ভালোবাসা

আমার ছন্দ ছড়া,

লক্ষ জীবন দিয়ে আমার

সোনার বাংলা গড়া।

দেশের জন্য যুদ্ধ করে

আরও পড়ুনঃ  কবিতাঃ কাঁদতে আসিনি ফাঁসির দাবি নিয়ে এসেছি - মাহবুব উল আলম চৌধুরী

জীবন দিলো যাঁরা,

তাঁদের জন্য বিজয় দিবসে আমি

হইযে পাগল পারা।

বিজয়ের কবিতা
বিজয়ের কবিতা

বিজয় দিবসের কবিতা ২ 

বিজয়ের কবিতা
কাজী ফারুক বাবুল

রক্ত ঝরা সংগ্রামের পর

আমরা পেয়েছি মহান বিজয়

অর্জন করেছি গৌরব দ্বীপ্ত স্বাধীনতা

আমাদের জাতীয় ঐতিহ্যের সাথে

মিশে আছে এই দিনের তাৎপর্য

আর তাই আনন্দ উল্লাসে আমরা

পালন করি এই দিনের কর্মসূচী প্রতিবছর

বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিক

হিন্দু মুসলমান বৌদ্ধ খ্রীষ্টান

বিভিন্ন উপজাতি বিভিন্ন পেশার মানুষ

গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করি এই দিনটিকে

এই বিজয় কারো একার নয়

এই বিজয় ষোলকোটি মানুষের

স্বাধীনতা লাভের আনন্দ আর স্বজনহারাদের জন্য

ভারাক্রান্ত মিশ্র অনুভূতির এই দিন

বিশ্বের ইতিহাসে চির অম্লান হয়ে থাকবে চিরদিন

বিজয়ের মাস বজলুর রশীদ চৌধুরী

বিজয় দিবসের কবিতা ৩ 

বিজয়ের মাস
বজলুর রশীদ চৌধুরী

বিজয় মাসে বারবার আসে সেই শহীদান,

দেশের তরে অকাতরে যারা দিল প্রাণ।

ওরা তাজ ওরা সাজ ওরা দেশের গর্ব,

ওরা কর্ম ওরা মর্ম ওরা সবের সর্ব।

ওরা চেতন ওরা বেদন ওরা গোটা জাতি,

ওরা দেশ ওরা কেশ ওরা দেশের বাতি।

ওরা সুখ ওরা দুখ ওরা মোদের আশা,

ওরা ধ্যান ওরা জ্ঞান ওরা ভালবাসা।

মুখের ভাষা মায়ের আশা রাখল কত শহীদ,

ওদের কথা ওদের ব্যথা জাগায় মুক্তির তাগিদ।

একাত্তরে সর্বস্তরে অস্ত্র তুলে হাতে,

নয় মাস ধরে যুদ্ধ করে পাকিস্থানের সাথে।

বীর বাঙালী নয় কাঙালী বীরের বংশ ওরা,

আরও পড়ুনঃ  ২১ শে ফেব্রুয়ারি কবিতা | একুশে ফেব্রুয়ারি কবিতা সংকলন | একুশের সেরা কবিতা

ষোল ডিসেম্বর সাল একাত্তর বিজয় পেল যারা।

খুশীর সানাই বাজায় কানাই আহা ভাল বেশ,

নতুন করে ধরার পরে স্বাধীন বাংলাদেশ।

স্বাধীন দেশ স্বাধীন বেশ স্বাধীন কথা বলি,

বিজয় নিশাণ মোদের বিধান বুক ফুলিয়ে চলি।

স্বর্ণাক্ষরে বাংলার ঘরে সাল একাত্তর,

অধীনের দিন হল বিলীন নাহি ভয়-ডর,

যুগে যুগে বাংলার বুকে আসে মীর জাফর

দেশের সন্তান হও সাবধান বাঁচাও আপন ঘর।

বিজয় দিবসের কবিতা ৪ 

স্বাধীনতা তুমি
অধ্যক্ষ আবু জাফর মোহাম্মদ হারুন

স্বাধীনতা তুমি অবারিত ফসলের মাঠ

স্রোত স্বিনীর কুলুকুলু রব,

নিঝুম রাতে তারার ঝলকানী

পূর্বাকাশে উদিত প্রভাত রবি।

স্বাধীনতা হলো পত্র বিহীন কৃষ্ণচূড়া

আর রক্তপালের ঝাড়,

বট বৃক্ষ তলে দিক বিদিক পড়ে থাকা

কঙ্কাল রাজি ।

স্বাধীনতা মানে শৃঙ্খলমুক্তি

নয় পরাধীনতা

বিশ্ব দরবারে প্রতিষ্ঠিত

ভাস্বর এক পৃথক সত্তা ।

বিজয় দিবসের কবিতা ৫ 

বঙ্গ বিজয়
মোঃ জাহিদুল ইসলাম

কতকাল পরে বাঙালীর ঘরে

এলো বঙ্গ বিজয়ের মাস,

হানাদার বাহিনী অঙ্গ সংগঠন

করিল বাংলার কত সর্বনাশ।

কত মা-বোনের সম্ভ্রম লুটিয়ে

করেছে কত গুম,

বয়েছে নহর কত মানুষের

বুকের তাজা খুন ।

বাংলা ভাষা আগলে রাখতে

দিলো পরিচয় রণে,

সালাম, বরকত, রফিক, জব্বার

শহীদ হলেন কত জনে।

বাঙালী জাতি গর্জে উঠিল

শেখ মুজিবুর যার নেতা,

নতশির নয়, যুদ্ধ করিব

ছিনিয়ে নিবো স্বাধীনতা।

বাঙালী জাতির উন্নত শির

সমর অস্ত্র ধরিল হাতে,

আরও পড়ুনঃ  হঠাৎ দেখা প্রেমের কবিতা | হঠাৎ দেখা কবিতার মূলভাব

হানাদার বাহিনীর দোসর যারা

কেউ যেন প্রাণে না বাঁচে।

বিতারিত হলো হায়েনার দল

করিল আত্মসমর্পন,

কত কিছুর বেশে অবশেষে

উড়লো বিজয় কেতন।

বিজয় দিবসের কবিতা ৬ 

স্বাধীন বাংলাদেশ
আতিকা হারুন জেবা

বাংলা আমার জন্মভূমি

বাংলা মাতৃভাষা,

এ ভাষাতে জেগে আছে

কোটি মনের আশা।

হানাদারদের কবল থেকে

স্বাধীনতা আনল যাঁরা,

আমরা তাদের ভূলব না

বীর সেনানী তাঁরা।

ভালবাসি বাংলা আমি

ভাল থেকো বেশ,

মুক্তি সেনার রক্তস্নাত

স্বাধীন বাংলাদেশ।

বিজয় দিবসের কবিতা ৭ 

বাঙালির জীবনে বিজয় দিবস’
নাদিয়া নওশাদ

১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবস,

বাঙালির জীবন ইতিহাসে

এক অবিস্মরণীয় দিন,

এই দিনে বাঙালির আনন্দ সীমাহীন।

পথে ঘাটে বের হয় বিজয় মিছিল

রাজপথ,মেঠোপথ সব

জনসমাগমে করে কিলবিল।

আকাশে-বাতাসে ভাসে

বিজয় দিবসের আনন্দ স্লোগান

জাগ্রত জনতা গেয়ে

ওঠে বিজয়ের জয়গান।

৩০ লক্ষ শহীদের তরতাজা প্রাণ

বাঙালিকে উপহার দিল মুক্তির স্লোগান।

অগণিত নারীর হয়েছিল সম্ভ্রমহানি,

হায় অবর্ণনীয় সেইসব কাহিনী!

আজ বিজয়ের শোভামন্ডিত

স্বাধীন বাঙালি জাতি

উৎসব আনন্দে করে সবাই মাতামাতি।

চারিদিকে হৈ চৈ,শোরগোল,কলরব

উচ্ছ্বসিত জনগণ আনন্দে মেতে ওঠে

কাজকর্ম এথায় সেথায় ফেলে সব।

উপরে উল্লেখ করা কবিতাগুলি আপনাদের আশাকরি ভালো লাগছে। সামনেই বিজয় দিবস। আর তাই এই কবিতাগুলি বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় লিখলে আশা করা যায় আপনি ফাস্ট হবেন।

About the Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like these

Share via
Copy link