বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত পুরোটা ২৫ লাইন | বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত

জাতীয় সংগীত পুরোটা ২৫ লাইন

আপনারা অনেকেই জাতীয় সংগীত পুরোটা ২৫ লাইন জানেন এবং আবার আপনারা অনেকেই জানেন না। বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত পেয়ে যাবেন আমাদের আজকের এই পোষ্টে। প্রতিটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশের জাতীয় সংগীত রয়েছে। একইভাবে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে আমাদেরও একটি জাতীয় সঙ্গীত আছে।

জাতীয় সংগীত পুরোটা ২৫ লাইন
জাতীয় সংগীত পুরোটা ২৫ লাইন

আজকের নিবন্ধটি আমাদের জাতীয় সংগীত নিয়ে গঠিত। আজকের নিবন্ধে আমরা জাতীয় সংগীত এর পঁচিশ লাইন উল্লেখ করব। এছাড়াও, আমি জাতীয় সংগীত সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য বিস্তারিতভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করব এই ব্লগ পোষ্টে।

একটি স্বাধীন জাতি হিসাবে আমাদের জাতীয় সংগীত সম্পর্কে জানা এবং আমাদের জাতীয় সংগীতকে সম্মান করা আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কর্তব্য। তার চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ আমাদের জাতীয় সংগীতকে সম্পূর্ণরূপে লেখা। সেজন্যই আজকের নিবন্ধটি তৈরি করা হয়েছে।

বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত মোট কত লাইন?

বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীতের মোট লাইন কতটি তা নিয়ে সংশয় রয়েছে অনেকের মাঝে। মূলত আমরা ছোটবেলা থেকে যে জাতীয় সংগীত গাইছি তাতে ১০ লাইন থাকে।

যাইহোক, ১৩ জানুয়ারী, ১৯৭২ তারিখে, বাংলাদেশ সরকার গানটির প্রথম দশ লাইন জাতীয় সংগীত হিসাবে গাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় (মোট লাইন সংখ্যা পঁচিশটি)।

আরও পড়ুনঃ  মেডিকেলে পড়ার জন্য কত পয়েন্ট লাগবে বা থাকলে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি?

প্রথম চারটি লাইন যন্ত্রসঙ্গীত এবং সামরিক বাহিনীতে ব্যবহৃত হয়। একই বছর, বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত হিসেবে ব্যবহৃত “আমার সোনার বাংলা” গানটির স্বরলিপি বিশ্বভারতী সঙ্গীত বোর্ড কর্তৃক অনুমোদিত হয়।

 

জাতীয় সংগীত ১০ লাইন

আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি।

চিরদিন তোমার আকাশ, তোমার বাতাস, আমার প্রাণে বাজায় বাঁশি॥

ও মা, ফাগুনে তোর আমের বনে ঘ্রাণে পাগল করে,
মরি হায়, হায় রে—

ও মা, অঘ্রানে তোর ভরা ক্ষেতে আমি কী দেখেছি মধুর হাসি॥

কী শোভা, কী ছায়া গো, কী স্নেহ, কী মায়া গো—

কী আঁচল বিছায়েছ বটের মূলে, নদীর কূলে কূলে।

মা, তোর মুখের বাণী আমার কানে লাগে সুধার মতো,

মরি হায়, হায় রে—

মা, তোর বদনখানি মলিন হলে, ও মা, আমি নয়নজলে ভাসি॥

এগুলি পড়তে পারেন>>> 

  1. বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিখ্যাত কবিতা | ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কবিতা
  2. ১৫ আগস্ট সম্পর্কে উপস্থিত বক্তৃতা | ১৫ আগস্ট সম্পর্কে বক্তৃতা
  3. বঙ্গবন্ধুর জীবনী বাংলা রচনা ১০০০ শব্দ | বঙ্গবন্ধুর জীবনী বাংলা রচনা
  4. শেখ রাসেল রচনা ২০০ শব্দ | আমার ভাবনায় শেখ রাসেল রচনা
  5. বিজয় দিবস রচনা ২০ পয়েন্ট | বিজয় দিবস রচনা

জাতীয় সংগীত পুরোটা ২৫ লাইন

কত সালে বিবিসি’র শ্রোতা জরিপে ‘আমার সোনার বাংলা’ গানটিকে ‘শ্রেষ্ঠ বাংলা গান’ হিসেবে নির্বাচিত হয়?

 

২০০৬ সালে বিবিসি’র শ্রোতা জরিপে ‘আমার সোনার বাংলা’ গানটিকে ‘শ্রেষ্ঠ বাংলা গান’ হিসেবে নির্বাচিত হয়।

আরও পড়ুনঃ  Top 10 E-commerce Online shopping BD list

আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি।

চিরদিন তোমার আকাশ, তোমার বাতাস, আমার প্রাণে বাজায় বাঁশি।

ও মা, ফাগুনে তোর আমের বনে ঘ্রাণে পাগল করে,

মরি হায়, হায় রে

ও মা, অঘ্রাণে তোর ভরা ক্ষেতে আমি কী দেখেছি মধুর হাসি।

কী শোভা, কী ছায়া গো, কী স্নেহ, কী মায়া গো

কী আঁচল বিছায়েছ বটের মূলে, নদীর কূলে কূলে।

মা, তোর মুখের বাণী আমার কানে লাগে সুধার মতো,

মরি হায়, হায় রে

মা, তোর বদনখানি মলিন হলে, ও মা, আমি নয়নজলে ভাসি।

তোমার এই খেলাঘরে শিশুকাল কাটিল রে,

তোমারি ধুলামাটি অঙ্গে মাখি ধন্য জীবন মানি।

তুই দিন ফুরালে সন্ধ্যাকালে কী দীপ জ্বালিস ঘরে,

মরি হায়, হায় রে

তখন খেলাধুলা সকল ফেলে, ও মা, তোমার কোলে ছুটে আসি।

ধেনু-চরা তোমার মাঠে, পারে যাবার খেয়াঘাটে,

সারাদিন পাখি-ডাকা ছায়ায়-ঢাকা তোমার পল্লীবাটে,

তোমার ধানে-ভরা আঙিনাতে জীবনের দিন কাটে,

মরি হায়, হায় রে

ও মা, আমার যে ভাই তারা সবাই, তোমার রাখাল তোমার চাষি।

ও মা, তোর চরণেতে দিলেম এই মাথা পেতে

দে গো তোর পায়ের ধূলা, সে যে আমার মাথার মানিক হবে।

ও মা, গরিবের ধন যা আছে তাই দিব চরণতলে,

মরি হায়, হায় রে

আমি পরের ঘরে কিনব না আর, মা, তোর ভূষণ বলে গলার ফাঁসি।

আরও পড়ুনঃ  Chinstrap Penguin: যে পেঙ্গুইন মাত্র ৪ সেকেন্ড ঘুমায়, অসাধারন একটি পাখি

জাতীয় সংগীতের রচয়িতা কে?

জাতীয় সঙ্গীত রচিত হয়েছিল রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। ১৮৮৯-১৯০১ সাল পর্যন্ত পূর্ববঙ্গের শাহজাদপুর, শিলাইদহে জমিদার হিসাবে ১২ বছর মেয়াদে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর আমাদের জাতীয় কবিতা “সঙ্গীত আমার সোনার বাংলা” রচনা করেছিলেন।

বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত

গানটি ১৯০৫ সঞ্জীবনী পত্রিকা এবং বঙ্গদর্শন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিল। ২০০৬ সালে, ‘আমার সোনার বাংলা‘ গানটি বিবিসি শ্রোতা জরিপে ‘সেরা বাংলা গান‘ নির্বাচিত হয়।

আমাদের শেষ মতামত

প্রিয় পাঠক, আমাদের আজকের এই নিবন্ধটি বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত সম্পর্কে আপনাদের অবহিত করার জন্য তৈরি করা হয়েছে। আশা করি আজকের নিবন্ধটি আপনার ভালো লেগেছে। জাতীয় সঙ্গীতের পূর্ণ ২৫ লাইন তা আপনাদের বিস্তারিত বলা হয়েছে।

বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত পুরোটা ২৫ লাইন আমরা আপনাদের সামনে উল্লেখ করেছি। এ বিষয়ে আপনার কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকলে কমেন্ট বক্সের মাধ্যমে আমাদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। আমাদের ফেসবুক পেইজ এ আপনাদের আমন্ত্রন রইল।

এগুলি পড়তে পারেন>>> 

  1. বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিখ্যাত কবিতা | ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কবিতা
  2. ১৫ আগস্ট সম্পর্কে উপস্থিত বক্তৃতা | ১৫ আগস্ট সম্পর্কে বক্তৃতা
  3. বঙ্গবন্ধুর জীবনী বাংলা রচনা ১০০০ শব্দ | বঙ্গবন্ধুর জীবনী বাংলা রচনা
  4. শেখ রাসেল রচনা ২০০ শব্দ | আমার ভাবনায় শেখ রাসেল রচনা
  5. বিজয় দিবস রচনা ২০ পয়েন্ট | বিজয় দিবস রচনা

FAQs

No schema found.

About the Author

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may also like these

Share via
Copy link